মেক্সিকো সীমান্তে সৈন্য পাঠানোর ঘোষণা ট্রাম্পের

9

আন্তর্জাতিক ডেক্স : যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চলে মেক্সিকোর সঙ্গে সীমান্ত নিরাপদ করার জন্য সৈন্য পাঠানোর ঘোষণা দিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ভোটে জয়ের আগে ডোনাল্ড ট্রাম্পের অন্যতম নির্বাচনী এজেন্ডা ছিল ‘ম্যাক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণ’। কিন্তু প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর সিনেটে পর্যাপ্ত সমর্থনের অভাবে তা বাস্তবায়ন সম্ভব না হওয়ায় পূর্বসূরিদের পথ অনুরসণ করছেন ট্রাম্প।

এ বিষয়ে হোয়াইট হাউজে এক বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘এখন থেকে সামরিকভাবে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করা হবে। আর সেটি হতে যাচ্ছে একটি বড় ধরনের পদক্ষেপ।’

এর আগে হন্ডুরাস থেকে এক হাজারেরও বেশি শরণার্থীর একটি ক্যারাভ্যান যুক্তরাষ্ট্রের দিকে রওনা হয়েছে, এমন খবর প্রকাশের পর দেশটিকে দেয়া সহযোগিতা বন্ধের হুমকি দেন ট্রাম্প।

যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের পূর্বেই এসব শরণার্থীদের বাধা দেয়ার কথা জানান প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এ বিষয়ে এক টুইটে ট্রাম্প বলেন, মেক্সিকো সীমান্ত হয়ে এই শরণার্থীরা যুক্তরাষ্ট্রে ঢুকে পড়তে চায়। এবং দুর্বল সীমান্ত আইনের সুযোগ নেবে তারা। কিন্তু সেই সেই ক্যারাভ্যান পৌঁছানোর আগেই তাদের থামাতে হবে।

এছাড়া বাল্টিক অঞ্চলের দেশ এস্তোনিয়া, লিথুনিয়া এবং লাটভিয়ার প্রেসিডেন্টের সাথে হোয়াইট হাউসে এক বৈঠকের পর সাংবাদিকদের ট্রাম্প বলেন, মেক্সিকো যতদিন সীমান্তে পথে অবৈধ মানব-পাচার বন্ধ না করবে, ততদিন পর্যন্ত উত্তর অ্যামেরিকা মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি নাফটা বাস্তবায়ন ঝুঁকির মধ্যে থাকবে।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্ত নিরাপদ করার জন্য বারাক ওবামা ও জর্জ ডব্লিউ বুশ সীমান্তে সৈন্য মোতায়েন করেছিলেন। ন্যাশনাল গার্ডকে সহযোগিতা করার জন্য তাদেরকে পাঠানো হয়েছিল।

শুরু থেকেই অভিবাসীদের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করছেন ট্রাম্প। তবে সম্প্রতি ক্ষোভের মাত্রা বেড়ে গিয়েছে। অভিবাসীদের প্রবেশ ঠেকাতে উদ্যোগ নেয়ার পাশাপাশি ডেমোক্রেটদের দোষারোপ করে তিনি বলেন, ‘তারাই সীমান্ত খুলে দিয়ে অভিবাসী, মাদক আর অপরাধের বিস্তার ঘটাতে দিয়েছে।’  সূত্র: বিবিসি