বিকেল ৫টার মধ্যেই শেষ করতে হবে পয়লা বৈশাখের অনুষ্ঠান

10

ঢাকা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, পয়লা বৈশাখের সব অনুষ্ঠান বিকেল ৫টার মধ্যে শেষ করতে হবে। ইভটিজিং বন্ধে পয়লা বৈশাখের অনুষ্ঠান স্থলসহ আশপাশের এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আসন্ন পয়লা বৈশাখ ও নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত সভা শেষে তিনি এ তথ্য জানান।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, শোভাযাত্রায় ভুভুজেলা বাজানো যাবে না। মুখোশ হাতে রেখে শোভাযাত্রায় অংশ নিতে হবে। অংশগ্রহণকারীরা কেউ মুখোশ ব্যবহার করতে পারবেন না।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, পয়লা বৈশাখের মূল অনুষ্ঠান রমনার বটমূলে হবে। ছায়ানট এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করবে। এছাড়া রবীন্দ্র সরোবরে অনুষ্ঠান হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগ ও টিএসসির অনুষ্ঠান অবশ্যই ৫টার মধ্যে শেষ করতে হবে। শুধু রবীন্দ্র সরোবরে চলবে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত। মঙ্গল শোভাযাত্রা বের হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা থেকে। দুষ্কৃতিকারীরা মুখোশ ব্যবহার করে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটাতে না পারে সেজন্য এটি ব্যবহার করা যাবে না।

তিনি আরো বলেন, পয়লা বৈশাখের সব অনুষ্ঠানে সর্বাত্মক নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। রমনার বটমূলসহ সব গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন, পর্যবেক্ষণ টাওয়ার থেকে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হবে।

নিরাপত্তার স্বার্থে রমনা লেক ও হাতিরঝিল এলাকায় পর্যাপ্তসংখ্যক ডুবুরি, দমকল বাহিনী ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন। অনুষ্ঠান স্থলে ম্যাচ ও লাইটার নিয়ে প্রবেশ করা যাবে না।

বৈশাখের অনুষ্ঠান উপলক্ষে কূটনৈতিক এলাকায় বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হবে বলেও জানান তিনি।

এছাড়া সারা দেশের মহানগর, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে বৈশাখী মেলা, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতি অনুষ্ঠান প্রদর্শনীর আয়োজন করা হবে।

বৈঠকে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) জাবেদ পাটোয়ারী, র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়, সিটি করপোরেশন, স্থানীয় সরকার, বিদ্যুৎ বিভাগ ও সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।