যেটা চেয়েছিলাম সেটা করতে পেরেছি

7

ক্রীড়া প্রতিবেদক :  টি-টোয়েন্টিতে খেলার সুযোগ থাকলেও খেলেননি। লক্ষ্য ছিল ঘরোয়া ক্রিকেটে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে নিজের সেরাটা দেওয়ার।

লিগের শুরু থেকেই জানতেন যে, পুরো লিগ খেলার সুযোগ থাকবে। তাইতো সেভাবেই লক্ষ্য ঠিক করেছিলেন। ভালো বোলিংয়ের লক্ষ্য। নতুন কিছু শিখেছেন, নতুন অস্ত্রের পরীক্ষা করেছেন। সেগুলোতে মাশরাফি বিন মুর্তজা সফল। এবারের অভিজ্ঞতাটা কাজে লাগাতে চান জাতীয় দলে। নতুন অস্ত্রগুলো আরো ধারালো করে সেগুলো প্রয়োগ করতে চান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে।

মিরপুরে আজ মাশরাফি বললেন, ‘লিগে আমি যেটা চেয়েছিলাম সেটা করতে পেরেছি। অনেক কিছুই আমি নতুন করে করতে পেরেছি লিগে। নতুন কিছু করার চেষ্টা করেছি। সেগুলো আন্তর্জাতিক কোয়ালিটির মতো না হলেও আমার আত্মবিশ্বাস বাড়াতে কাজে এসেছে। অফ সিজনে অনুশীলনে কোচদের সাথে আলোচনা করে জিনিসটা বিল্ড আপ করা যায় কি না এবং সেটা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও কাজে লাগাতে পারি কি না, সেটাও দেখতে হবে। উইকেট ব্যাপার না, আমার ফোকাস যেটাই ছিল আমি এখন পর্যন্ত সেটা পেরেছি, এটাই বড় ব্যাপার।’

এবারের ওয়ালটন ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে এখন পর্যন্ত ১৫ ম্যাচে ৩৮ উইকেট পেয়েছেন মাশরাফি। ঢাকা লিগ লিস্ট ‘এ’ মর্যাদা পাওয়ার পর এক মৌসুমে সর্বোচ্চ উইকেট এটি। রেকর্ড গড়া বোলিং মাশরাফির। নিজেকে চেনা রূপে রাখতে মাশরাফি অন ফিল্ড এবং অফ ফিল্ডে নিজেকে সমানভাবে নিয়ন্ত্রন করেছে। তাই পুরো মৌসুমে নিজের পারফরম্যান্স, ফিটনেস এবং নিবেদনে শতভাগ সন্তুষ্ট জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক।

‘লিগের শুরুতে জানতাম, এ মৌসুমে পুরোটা খেলার সুযোগ আছে। যেহেতু টি-টোয়েন্টি খেলছি না। মানসিক চিন্তা ছিল যে, প্রস্তুতি যেন ঠিকঠাক হয় পরের ওয়ানডে সিরিজ আসার আগে। এই লিগ তাই আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ ছিল। এখনো পর্যন্ত সব ভালো যাচ্ছে। শুরু থেকে এখনো পর্যন্ত এটাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ আমার কাছে। অন ফিল্ডে আমার পারফরম্যান্সে পার্থক্য তৈরি হয়নি। নিজের ওপর নিয়ন্ত্রণের ক্ষমতা আরো ভালোভাবে হয়েছে।’

ঢাকা লিগের পরপরই বিসিএল। আপাতত বিসিএল খেলার ইচ্ছে নেই মাশরাফির। পুরো মৌসুম খেলায় বিশ্রামে থাকতে চান। বিসিএলের চতুর্থ রাউন্ডে হয়তো খেলবেন না। তাকে দেখা যেতে পারে পঞ্চম রাউন্ডে।