৪৮ বছরের অপেক্ষা ঘুচল প্রোটিয়াদের

11

ক্রীড়া ডেস্ক : অপেক্ষা ছিল ৭ উইকেটের। দিনের প্রথম ওভারেই মার্শ ভাইদের ফিরিয়ে সংখ্যাটা পাঁচে নামিয়ে আনলেন ভারনন ফিল্যান্ডার। দক্ষিণ আফ্রিকার পেসার পরে ধংস করে দিলেন পুরো অস্ট্রেলিয়া দলকেই।

জোহানেসবার্গ টেস্টে ৬১২ রানের অসম্ভব এক লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে অস্ট্রেলিয়া অলআউট হয়েছে ১১৯ রানে। আজ পঞ্চম দিনে অস্ট্রেলিয়ার শেষ ৭ উইকেট তুলে নিতে দক্ষিণ আফ্রিকার পুরো এক সেশনও লাগেনি।

সিরিজের শেষ টেস্ট দক্ষিণ আফ্রিকা জিতেছে ৪৯২ রানে। রানের হিসাবে দক্ষিণ আফ্রিকার সবচেয়ে বড় জয় এটিই। আর অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় বড় পরাজয়। ১৯২৮ সালে তারা ব্রিসবেনে ইংল্যান্ডের কাছে হেরেছিল ৬৭৫ রানে।

দক্ষিণ আফ্রিকা চার টেস্টের সিরিজ জিতে নিয়েছে ৩-১ ব্যবধানে। ১৯৭০ সালের পর প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঘরের মাঠে টেস্ট সিরিজ জিতল প্রোটিয়ারা। ঘুচল ৪৮ বছরের অপেক্ষা।

৩ উইকেটে ৮৮ রান নিয়ে শেষ দিন শুরু করেছিল অস্ট্রেলিয়া। ১০০ বল আর ৩১ রানেই শেষ ৭ উইকেট হারিয়েছে সফরকারীরা!

ফিল্যান্ডার আগের দিন ৫ ওভারে ৯ রান দিয়ে ছিলেন উইকেটশূন্য। আজ দিনের প্রথম বলেই ফিরিয়ে দেন শন মার্শকে। তিন বল পর ফেরান আরেক মার্শ- মিচেলকেও।

ফিল্যান্ডারের পরের পাঁচ ওভারের মধ্যে একে একে ফেরেন পিটার হ্যান্ডসকম্ব, টিম পেইন, প্যাট কামিন্স ও চ্যাড সেয়ার্স। এর মধ্যে শেষ দুজনকে টানা দুই বলে ফিরিয়ে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনাও জাগিয়েছিলেন। দিনে নিজের প্রথম ছয় ওভারে ফিল্যান্ডার ৬ উইকেট নেন ৩ রানে!

পরের দুই ওভারে জশ হ্যাজেলউড দুটি চার মারায় ফিল্যান্ডারের আট ওভারের স্পেল থামিয়ে দেন ডু প্লেসি। মরনে মরকেলের ওভারে দুই রান নিতে গিয়ে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে রান আউটে কাটা পড়েন নাথান লায়ন।

দ্বিতীয় ইনিংসে ক্যারিয়ার সেরা ২৮ রানে ৬ উইকেট নিয়েছেন ফিল্যান্ডার। ম্যাচে ৫১ রানে ৯ উইকেট। ক্যারিয়ারের শেষ টেস্টে মরকেল পেয়েছেন ৩ উইকেট।

দাপুটে এক জয়েই মরকেলকে বিদায়ী উপহার দিলেন সতীর্থরা। ড্যারেন লেম্যানকে হতাশা ছাড়া কিছুই দিতে পারল না অস্ট্রেলিয়া। অস্ট্রেলিয়ার কোচ হিসেবে যে এটিই ছিল লেম্যানের শেষ টেস্ট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

দক্ষিণ আফ্রিকা ১ম ইনিংস: ৪৮৮ ও ২য় ইনিংস: ৩৪৪/৬ ডিক্লে.

অস্ট্রেলিয়া ১ম ইনিংস: ২২১ ও ২য় ইনিংস (লক্ষ্য ৬১২): ১১৯

ফল: দক্ষিণ আফ্রিকা ৪৯২ রানে জয়ী

সিরিজ: চার টেস্টের সিরিজ দক্ষিণ আফ্রিকা ৩-১ ব্যবধানে জয়ী

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: ভারনন ফিল্যান্ডার

ম্যান অব দ্য সিরিজ: কাগিসো রাবাদা