নড়াগাতিতে আ’লীগের সম্মেলন নিয়ে সংঘর্ষ, আহত ১৩

0

নড়াইল অফিস : নড়াইলের নড়াগাতি থানা আ’লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। আ’লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে অন্তত ১৩ জন আহত হয়েছেন। শনিবার (২৬ অক্টোবর) সকাল ১১টার দিকে থানার পহর ডাঙ্গা বাজারে এ সংঘর্ষ হয়। ওই এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।
আহতরা হলেন-যুবলীগ নেতা সেলিম-মফিজ গ্রুপের সমর্থক পহরডাঙ্গা ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড আ’লীগের সভাপতি রহিম শিকদার (৪০), ৫নং ওয়ার্ড আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মামুন শেখ (৩০), ওই ইউনিয়নের স্বেচ্ছাসেবক লীগের দফতর সম্পাদক দিদার মোল্যা (২৩), জাহাঙ্গীর শেখ (২৫), ওই ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি আকিদুল মোল্যাসহ (৩৫) ৫জন এবং প্রতিপক্ষ আজম ঠাকুর-লাবু শিকদার গ্রুপের খসরু মোল্য (২২), মিরাজ শেখ (৪০), লালন শিকদার (৩০)সহ ৮জন। আহতদেরকে গোপালগঞ্জ ও খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
স্থানীয়রা জানায়, শনিবার সকাল থেকেই সম্মেলনকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা দেখা দেয়। ২০০৮ সালের জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নড়াইল-১ আসনে মূলত আ’লীগ দু’টি ধারায় বিভক্ত হয়ে পড়ে। যা ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনেও বিদ্যমান রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার সকালে পহর ডাঙ্গা বাজার থেকে স্থানীয় যুবলীগ নেতা সেলিম-মফিজ শেখের গ্রুপের সমর্থকরা সম্মেলন স্থল কাচারি বাড়ী মাঠ প্রাঙ্গণে মিছিল সহকারে যাবার প্রাক্কালে প্রতিপক্ষ গ্রুপের পহরডাঙ্গা ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি আজম ঠাকুর ও বিএনপি থেকে আগত হাইব্রিড বলে পরিচিত সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী প্রার্থী সাবেক পহরডাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান আহসান আলী সিকদার লাবুর সমর্থক যুবদল নেতা সাদ্দাম ব্যানার ছিঁড়ে ফেললে কথা কাটাকাটির এক পর্যায় উভয় গ্রুপের সমর্থকদেও মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। এ ঘঁনায় উভয় গ্রুপের ১৩ জন নেতা-কর্মী আহতহয়। এসময় দিদার মোল্যার একটি মোটরবাইক ভাংচুর কওে সড়কের পাশে ড্রেনে ফেলে দেয় প্রতি পক্ষগ্রুপের লোকজন। সংঘর্ষেও সংবাদ পেয়ে নড়াগাতি থানা পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।
নড়াগাতি থানা ওসি এস এম আলমগীর কবির বলেন, ‘সংঘর্ষের সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে। এ ঘটনায় কেউ কোন অভিযোগ দায়ের করেনি। বর্তমানে এলাকা শান্ত রয়েছে। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন আছে।’