খুলনায় ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ায় প্রবীণ সাংবাদিক গ্রেফতার

3

ভোলার ঘটনায় ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ায় খুলনার প্রবীণ সাংবাদিক দ্য নিউ নেশন পত্রিকার খুলনা প্রতিনিধি খুলনা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মনির উদ্দিন আহমেদ শান্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার দিবাগত রাত ৩টার দিকে পুলিশ তার দোলখোলার নিজ বাসভবন থেকে থানায় ডেকে নিয়ে যান। সোমবার সন্ধ্যায় তাকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

খুলনা সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শরিফুল আলম বাদী হয়ে মনির হোসেনকে আসামি করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৫, ২৮, ২৯ ও ৩১ ধারায় সদর থানায় মামলাটি করেন।

সাংবাদিক মুনির উদ্দিন ভোলার ঘটনায় পুলিশের ভূমিকার সমালোচনা করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন বলে মামলায় বলা হয়।

তার বিরুদ্ধে উসকানি দেয়া, দেশের শান্তিশৃঙ্খলা বিনষ্ট করা, সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করা, হিন্দু-মুসলমানদের সম্প্রীতি বিনষ্ট করা এবং পুলিশ বাহিনীর মনোবল নষ্ট করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

খুলনা মহানগর পুলিশের মুখপাত্র এডিসি শেখ মনিরুজ্জামান মিঠু জানান, মনির আহমেদ তার ফেসবুক পেজে ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলায় পুলিশের গুলিতে নিহত হওয়ার ঘটনায় উসকানিমূলক স্ট্যাটাস দেন।

এতে ভোলার পুলিশ সুপারকে নিয়ে বিভ্রান্তিমূলক মন্তব্য করায় ঊর্ধ্বতন মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ হয়। এ জন্য পুলিশ সদর দফতরের নির্দেশে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়। পরে তার বাসা থেকে মোবাইল ফোন জব্দ করে পুলিশ।

এডিসি আরও জানান, মনির উদ্দিন আহমেদ শান্তি ভোলার ঘটনায় পুলিশের ভূমিকার সঙ্গে ইসরায়েলি পুলিশ বা ইহুদিদের সঙ্গে তুলনা করেছেন বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।

ফেসবুকে আরও একটি স্ট্যাটাস পোস্ট করেন তিনি, যাতে ধর্মীয় মূল্যবোধ ও সম্প্রতি বিনষ্ট করার প্রমাণ পায় পুলিশ।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই সাইদুর রহমান বলেন, তার ফেসবুক স্ট্যাটাস ছিল উসকানিমূলক। তাকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন জানানো হয়েছে।

মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. আমিরুল ইসলাম আজ মঙ্গলবার রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করে তাকে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন।