ঝিকরগাছা থানাতে জামাইয়ের বিরুদ্ধে শাশুরীর অভিযোগ

2

ঝিকরগাছা অফিস : যশোরের ঝিকরগাছা থানাতে জামাইয়ের বিরুদ্ধ অভিযোগ দিয়েছেন পৌর সদরের কাটাখাল গ্রামের হোসেন আলীর স্ত্রী শাশুরী রমেছা বেগম (৫০)।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, প্রায় ৩বছর পূর্বে হাড়িয়াদেয়াড়া গ্রামের শুকুর মিয়া ছেলে রয়েল মিয়ার সাথে তার মেয়ে বিণা বেগমের সাথে বিবাহ হয়। বিবাহের পর হতে প্রায় সময় তার জামাই বিবাদী রয়েল নানা অযুহাতে তার মেয়ে বিণাকে মারপিট করে। গত ২১ সেপ্টেম্বর সকাল ৮টার সময় পারিবারিক তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে জামাই বিবাদী রয়েল আমার মেয়েকে কিল, ঘুষি, লাথি দিয়ে মারপিট করিয়া নীলফোলা জখম করে। তার মেয়ে বর্তমানে ঝিকরগাছা সরকারি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। ২২ সেপ্টেম্বর রবিবার জামাই বিবাদী রয়েল হাসপাতালে গিয়ে তার মেয়ে বিণাকে আবারও মারপিট করতে থাকে। সে প্রতিহত করতে গেলে জামাই বিবাদী রয়েল আমাকেও মারপিট করিয়ার আমার ডান হাতের কজ্বি ভেয়ে দেয়।
এই ঘটনার বিষয়ে জামাই রয়েলের নিকট মোবাইল ফোনে একাধিক বার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের ডা. আবুল কালাম বলেন, শনিবার রাতে ভর্তি হয়েছে। তার শরীলে মারের আঘাত ছিলো। এবং আজ (রবিবার) সকালে তার স্বামী এসে তাকে নাকি আবার আঘাত করে মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে। ঝিকরগাছা থানার এসআই সুরজিৎ বলেন, অভিযোগটি আমার নিকট এসেছে। আমি ঘটনার বিষয়ে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করব