নিউইয়র্কে বোমা হামলার নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ

15

সোনালী ডেস্ক:   যুক্তরাষ্ট্রে সোমবার সকালে পোর্ট অথরিটি বাস টার্মিনালের কাছে বোমা হামলায় এক বাংলাদেশি যুবক জড়িত থাকার কথা নিউইয়র্ক পুলিশ জানানোর পর ওয়াশিংটনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস এক বিবৃতি দিয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশ সরকারের সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যে জিরো টলারেন্স নীতি, তার প্রতি অঙ্গীকার থেকে বাংলাদেশ বিশ্বের যে কোন স্থানে সন্ত্রাস ও উগ্রবাদের নিন্দা জানায়। নিউইয়র্ক শহরে সোমবার সকালের ঘটনারও নিন্দা জানায় বাংলাদেশ।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ধর্ম কিংবা জাতীয়তা যাই হোক না কেন, সন্ত্রাসী সন্ত্রাসীই। তাকে বিচারের কাঠগড়ায় অবশ্যই দাঁড় করাতে হবে।

‘সন্ত্রাসী আক্রমণের চেষ্টা’র অভিযোগে পুলিশ একজনকে আটক করেছে। আটক হবার সময় আহত ওই ব্যক্তিকে মার্কিন সংবাদ মাধ্যম ‘বাংলাদেশি অভিবাসী’ বলে উল্লেখ করেছে।

শহরটির মেয়র বিল দা ব্লাসিও বলেছেন, সন্ত্রাসীরা কিছুতেই জয়ী হবে না।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বিস্ফোরণের পর শরীরে ‘নিম্ন-প্রযুক্তি’র একটি বোমা বাধা অবস্থায় আকায়েদ উল্লাহ নামে এক যুবককে আটক করা হয়েছে।

নিউ ইয়র্ক টাইমস সহ একাধিক মার্কিন সংবাদ মাধ্যম পুলিশকে উদ্ধৃত করে বলছে, আকায়েদউল্লাহ একজন বাংলাদেশি অভিবাসী এবং ব্রুকলিন এলাকার বাসিন্দা।

এরপর থেকে সেখানকার বাংলাদেশী কম্যুনিটির মধ্যে উদ্বেগ আর দুশ্চিন্তা ছড়িয়ে পড়ে।

 

এদিকে বাংলাদেশি কম্যুনিটির সকলেই একবাক্যে বলছেন, হামলাকারী ‘বাংলাদেশি অভিবাসী’ হলেও সে কিছুতেই বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করে না। তার শাস্তি হওয়া উচিত বলে মনে করেন কম্যুনিটির নেতৃবৃন্দ।

মি. হানিফ বলেছেন, ২০১৩ সালে নিউ ইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভে হামলা চালিয়েছিল ২১ বছর বয়েসী একজন অভিবাসী বাংলাদেশি। তখনো সেখানকার বাংলাদেশিদের উদ্বেগে দিনপার করতে হয়েছে।

এর আগে নিউইয়র্ক থেকে সাংবাদিক লাভলু আনসার বিবিসি বাংলাকে জানান, আকায়েদ উল্লাহ ব্রকলিনের ফ্ল্যাটল্যান্ডস এলাকার থাকতো । তার বাড়িটি এখন ঘেরাও করে রাখা হয়েছে। আকায়েদ উল্লাহ একটি বৈদ্যুতিক সামগ্রীর দোকানে কাজ করতো এবং সেখানেই বোমাটি তৈরি করা হয় বলে জানা গেছে।

 

সূত্র: বিবিসি বাংলা, ভয়েস অব আমেরিকা